নীলাদ্রি দেব-এর কবিতা

নীলাদ্রি দেব-এর কবিতা

ভাগশেষ হারিয়ে যাওয়া কোনো বিকেল ও বুদ্ধ

এক.
শ্রমণ পর্বের থেকে দূরে ওই যে চাতাল
নীল ও ধূসর মেঘের ভেতর থোপা থোপা বাড়ি
ঘুমের ভেতর দেশ
দেশ বলতে মাল্টিকলার্ড তাবু
তবে মেরুদণ্ডের মধ্যে ভেজাল স্পেস
হাঁটুতে ভর দিয়ে বসে আছি… বিক্ষিপ্ত অবয়ব
শেষ রাত্রের নিচে হঠাৎ উথলে ওঠে
এক চুমুক জল

দুই.
কত পথিক হেঁটে গেছেন, কত ভূপর্যটক
তাদের সামনে সুপারি বাগান যতটা ঘন ছিল
অনেকটা তারামণ্ডল
তারা খসে গেছে আমাদেরই অভ্যাসের দোষে
বন ভেঙে বোধশূন্যহীন
আস্ত ধ্যানের ঘর হারিয়ে গিয়েছে
হিমালয় বাড়ছে, আলো ক্রমে ঘন হয়ে আসে
তরাইয়ের ভাঁজে স্রোত, সমান্তরালে অবসন্ন নালা

তিন.
প্রেতলগ্ন আর নির্জন দুপুরের দিকে
গড়িয়ে যাচ্ছে মার্বেল
স্রোতের বিপরীতে হাঁটছেন অচেনা রঙের জোব্বা
আর কত দূরে স্টেশন, বোধিগাছতলা?
অদৃশ্য আঁতাত ভেঙে যাচ্ছে
খাদ থেকে প্ররোচনাহীন লাফে
হর্নবিল উড়ে গেল আন্তর্জাতিক সীমারেখার দিকে
এরপরও
একই দিকে হেলে আছে নিয়ন রঙের ছাতা

চার.
বৃত্ত ভেঙে এগিয়ে আসছে বেড়াল
কিন্তু বৃত্তপর্ব পেরোতে পারছে না কিছুতেই
এমনই উলের বল মানুষকে ছুঁড়ে দিচ্ছেন কেউ
এত রং, সূক্ষ্মতর কাজ
ইন্দ্রজালের পাশে অ্যাকুরিয়াম, ডুবুরির ভেজা পোশাক
অপকেন্দ্র বলে আদৌ কি কোনও প্রশ্ন ছুটে গেল
আত্মপরিচয়ের মাত্রায় বেহিসেবি বেলুন

পাঁচ.
যাবতীয় তালবাদ্য বাজছে
গোল ঘুরে যাচ্ছে চাকা
আলোর ওপারে ফ্রেস্কো, ধ্যানস্থ তথাগত
দূরকে আরও দূর এঁকে নিচ্ছি
জলরঙের প্রতিটি বিন্দু যেহেতু ঈশ্বর
ফ্যানব্রাশে গুঁজে দিচ্ছি খসে যাওয়া ফুল
প্রদীপের বাকি তেলে নিজস্ব ক্ষতের ছায়া

CATEGORIES
TAGS
Share This

COMMENTS

Wordpress (0)